1. shahinit.mail@gmail.com : My Bangla Tv : My Bangla Tv
  2. mybanglatv2021@gmail.com : মাই বাংলা টিভি : মাই বাংলা টিভি
৪ঠা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | সকাল ৭:১১

গাজাকে মরণ পুরিতে পরিণত করে দিয়েছে দখলদার ইসরায়েল

মাই বাংলা টিভি
  • প্রকাশের সময় শনিবার, ডিসেম্বর ৩০, ২০২৩,
  • 106 পাঠক

ফিলিস্তিনে ইসরায়েলি আগ্রাসন ও গণহত্যা বন্ধ এবং যুদ্ধবিরতির দাবিতে সংহতি সমাবেশ ও মিছিল করেছে বাংলাদেশ ‘ফিলিস্তিন সংহতি কমিটি’। শুক্রবার (২৯ ডিসেম্বর) বিকেলে রাজধানীর শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের সামনে তারা এ সমাবেশ করে। সমাবেশ শেষে শাহবাগ মোড় থেকে একটি মিছিল সায়েন্সল্যাব, নিউমার্কেট, নীলক্ষেত ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকা হয়ে জাতীয় শহীদ মিনারে গিয়ে শেষ হয়।
মিছিলে ‘ফিলিস্তিনে গণহত্যা-বন্ধ কর, করতে হবে’, ‘ইহুদিদের জায়ানবাদ, ধ্বংস হোক, নিপাত যাক’, ‘মার্কিন সাম্্রাজ্যবাদ ধ্বংস হোক, নিপাত যাক’, ‘মার্কিনীরা যেখানে, লড়াই হবে সেখানে’, ‘জায়ানবাদ যেখানে, লড়াই হবে সেখানে’, ‘হাত গোটাও মার্কিন, ফুরিয়ে গেছে তোদের দিন’, ‘মার্কিনীদের কালো হাত ভেঙে দাও, গুড়িয়ে দাও’ ইত্যাদি স্লোগান দিতে দেখা যায়।
সংহতি সমাবেশের শুরুতেই সাংস্কৃতিক আয়োজন করা হয়। পরিবেশনার মধ্যে ছিল গান, কবিতা, ও পথনাটক। এসবে ফুটিয়ে তোলা হয় ইসরায়েলি সাম্্রাজ্যবাদ ও ফিলিস্তিনের মানুষের দুর্দশার চিত্র। সাংস্কৃতিক আয়োজন শেষে বাংলাদেশে অবস্থিত ফিলিস্তিনের দূতাবাস থেকে পাঠানো বিবৃতি পাঠ করেন চৌধুরী মুফাদ আহমেদ। এরপর অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ সংহতি সমাবেশের ঘোষণাপত্র পাঠ করেন।
তিনি বলেন, চলতি বছরের ৭ অক্টোবর থেকে দখলদার ইসরায়েলের ঘৃণ্য মানবতাবিরোধী যুদ্ধাপরাধের নতুন পর্যায়টি নজিরবিহীন গণহত্যা ও ধ্বংসযজ্ঞ রূপে হাজির হয়েছে। যা আজ ৮৪ দিন ধরে বিরামহীনভাবে অব্যাহত। এসময় ইসরায়েলি দখলদার বাহিনী ২১ হাজারের বেশি মানুষকে হত্যা করেছে। নিহতদের মধ্যে রয়েছে ৮ হাজারের বেশি শিশু এবং ৬ হাজারের বেশি নারী। অনুমান করা হচ্ছে আরও ৮ হাজার মানুষ ধ্বংসস্তুপের নিচে চাপা পড়ে আছে।
অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ আরও বলেন, আন্তর্জাতিক কোনো আইন বিধি ইসরায়েল মান্য করছে না।প্রকৃতপক্ষে ইসরায়েল গাজাকে আন্তর্জাতিক আইনের ধারায় মরণ পুরিতে পরিণত করেছে। ইসরায়েলে হামাসের আক্রমণকে তারা অজুহাত হিসেবে ব্যবহার করছে। কিন্তু ইসরায়েল ফিলিস্তিন ভূখন্ডে হত্যা জুলুম করে যাচ্ছে ১৯৪৮ থেকে, আর হামাস প্রতিষ্ঠিত হয়েছে ১৯৮৭ সালে। এই দুই সময়ের মধ্যেই দখলদারদের হাতে প্রায় ৫০ হাজার ফিলিস্তিনি খুন হয়েছেন। কাজেই এসব অজুহাত কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়।
সংগঠনটির আহ্বায়ক ইমেরিটাস অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, আজকে ফিলিস্তিনদের ওপর ইসরায়েলিরা গণহত্যা ও দখলদারিত্ব চালাচ্ছে। এটা বলা হয়ে থাকে, এটি আধুনিক সময়ে সামরিক দখলদারিত্বের সর্বশ্রেষ্ঠ উদাহরণ। ফিলিস্তিনে গণহত্যা যে চলছে ও এটাকে যে থামানো যাচ্ছে না, সেজন্য আমাদের দুঃখ আরও বেশি। এই গণহত্যা ১৯৪৮ সাল থেকে বিভিন্ন আকারে চলছে। ফিলিস্তিনের জনসংখ্যা ২২-২৩ লাখ। সেখানে এরই মধ্যে ২১ হাজারের অধিক ফিলিস্তিনিকে হত্যা করা হয়েছে। ৫৫ হাজার ফিলিস্তিনি আহতাবস্থায় আছে। এদের মধ্যে শতকরা ৭০ ভাগ হলো নারী। আশ্রয় কেন্দ্রে বোমাবর্ষণ করা হচ্ছে। সেখানে একদিনে ৫০০ জনকে হত্যা করা হচ্ছে।

তিনি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের সমালোচনা করে বলেন, ফিলিস্তিনদের মুক্তিসংগ্রামে যখন ইসরায়েলের দুটো ধ্বংস হয়। তখন সারাবিশ্বে জুড়ে নিন্দা হয়। এই যে গণমাধ্যম ফিলিস্তিনদের ওপর চালানো গণহত্যাকে অস্বীকার করে বলতে চায়, হামাস ও ইসরায়েলের মধ্যে সংঘর্ষ চলছে। এটা তো সংঘর্ষ নয়। এটা গণহত্যা, আর গণহত্যা কী আমরা জানি।
সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, ফিলিস্তিন এখন একটা কারাগারে পরিণত হয়েছে। কারাগারে হত্যার অভিজ্ঞতা বাংলাদেশের মানুষ জানে। সেই অভিজ্ঞতা আমাদের ইতিহাসেই আছে। আমরা জানি ইসরায়েলের পেছনে আছে সাম্রাজ্যবাদী ও পুঁজিবাদী শক্তি। তারাই এই যুদ্ধ চালাচ্ছে। ইউক্রেনের সাথে যেমন পুঁজিবাদী ও সাম্রাজ্যবাদী রাশিয়ার যুদ্ধ। তেমনি ফিলিস্তিনের সাথে পুঁজিবাদী ও সাম্রাজ্যবাদী শক্তির যুদ্ধ।
তিনি আরও বলেন, ইসরায়েলের সংবাদমাধ্যম থেকে আসছে তাদের গড় আয়ু সাড়ে ৮২ বছর। আর সেখানকার আরবদের গড় আয়ু তিন-চার বছর কম। এই যে গড় আয়ুর পার্থক্য রয়েছে। সেটিই বলে দিচ্ছে, সেখানে কী রকম ব্যবস্থা রয়েছে। এছাড়া ইসরায়েল একটি বর্ণবাদী রাষ্ট্র। যখন ইথিওপিয়া থেকে কৃষাঙ্গ ইহুদিরা যায়, তারা সেখানে মর্যাদা পায় না। দুঃখের বিষয় এই যে, ইহুদিদের পূর্বপুরুষেরা হিটলারের যে বর্বরতা দেখেছে। সেটি আজ তারা ভুলে গেছে। সেই হলোকাস্ট এখন ফিলিস্তিনদের ওপর চালাচ্ছে। আজকে ফিলিস্তিনদের সংগ্রাামটা আমাদের সংগ্রাম ও সারাবিশ্বের মুক্তিকামী মানুষের সংগ্রাম । এই সংগ্রাম ও সাম্রাজ্যবাদ পুঁজিবাদের বিরুদ্ধে সংগ্রাম ।
সংহতি সমাবেশে ডা. হারুন-উর-রশিদের সঞ্চালনায় বিভিন্ন রাজনৈতিক ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গসহ একাধিক বামপন্থী ছাত্র সংগঠন উপস্থিত ছিল।

লাইক ও শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন-
এই পাতার আরও খবর

এই অন লাইন নিউজ পোর্টাল মাই বাংলা টিভির ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি | Copyright© My Bangla Tv | Developed By

Theme Customized BY WooHostBD